সোমবার, ২৭ জুন ২০২২, ০৫:৩৮ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
বিশৃঙ্খলা প্রতিরোধে সাংবাদিকদের সহযোগীতা চান সদর থানার নতুন ওসি শিক্ষিকাকে ইভটিজিং, শিক্ষা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে ডিসির কাছে স্মারকলিপি না.গঞ্জের সেই তিন শিশু পে‌লো প্রধানমন্ত্রীর পক্ষ থেকে স্ব‌র্ণের চেইনসহ উপহার নড়াইলে এস.এম সুলতান চারুকলা কলেজে ভবন উদ্বোধন করলেন মাশরাফি এমপি নদীর পানির স্তর বৃদ্ধি পেয়েছে ৭৬টি পয়েন্টে, কমেছে ২৯টিতে ৬০ বছর বয়সের পর লোকজন পেনশন পাবে : মন্ত্রিপরিষদ সচিব বুধবার সংবাদ সম্মেলন করবেন প্রধানমন্ত্রী আক্তার-মশু স্মৃতি সংঘের উদ্যোগে বোমা হামলায় শহীদদের স্মরণে মিলাদ মাহফিল নারায়ণগঞ্জ আওয়ামীলীগ অফিসে বোমা হামলার ২১ বছর ভুল চিকিৎসায় রোগীর মৃত্যু, হাসপাতালকে ২ লাখ টাকা জরিমানা

কুমুদিনীর শ্রমিকদের পুনর্বাসনের দাবীতে ডিসির কাছে স্মারকলিপি

জেলা প্রশাসক মোস্তাই বিল্লাহ’র কাছে স্মারকলিপি প্রদান করে কুমুদিনী ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট এর অধীন বেঙ্গল (বিডি) লি. পাট কোম্পানীতে কর্মরত শ্রমিকরা।

পুনর্বাসনের দাবীতে জেলা প্রশাসকের কাছে স্মারকলিপি প্রদান করেছে কুমুদিনী ওয়েলফেয়ার ট্রাস্ট এর অধীন বেঙ্গল (বিডি) লি. পাট কোম্পানীতে কর্মরত শ্রমিকরা। বৃহস্পতিবার (২৭ মে) সকালে জেলা প্রশাসক মোস্তাই বিল্লাহ’র কাছে স্মারকলিপি প্রদান করে তারা।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, বাংলাদেশ টেক্সটাইল গার্মেন্টস শ্রমিক ফেডারেশন কেন্দ্রীয় কমিটির সভাপতি অ্যাড. মাহাবুবুর রহমান ইসমাইল, কুমুদিনীতে কর্মরত শ্রমিক মো. নাসির, মো. হালিম, মো. জুয়েল প্রমুখ।
স্মারকলিপি প্রদান শেষে শ্রমিকরা জানান, জেলা প্রশাসক আমাদেরকে আশ্বস্ত করে বলেছেন, মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় এখানে একটি হাসপাতাল হবে। আমাদের যে সকল আইন রয়েছে সেসব আইন মোতাবেক কাজ করতে। আমি আমার পক্ষ থেকে শ্রমিকদের যে পাওনা-দাওনা রয়েছে সেগুলো যাতে তারা পায় তা দেখবো।
এর আগে পুনর্বাসনের দাবীতে জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের বাইরে মানববন্ধন করে কুমুদিনীতে কর্মরত শ্রমিকরা।
এসময় মানববন্ধনে বক্তারা বলেন, আমাদের উচ্ছেদের জন্যে হুমকি-ধামকি দেয়া হচ্ছে। যদি লিখিত নোটিশ দিতো তাহলেও মনকে বোঝানো যেতো। তারা বলছে আমরা নাকি নোটিশ ছিড়ে ফেলেছি। শ্রমিকদের কি নোটিশ ছিড়ে ফেলার সাধ্য আছে? এগুলো সম্পূর্ণ বানোয়াট এবং মিথ্যা অপবাদ চাপিয়ে দিচ্ছে। এসব কিছুর চক্রান্ত করছে কুমুদিনীর সিকিউরিটি গার্ড কামরুজ্জামান ও তার গং। মালিকপক্ষ ও কর্মকর্তারা কেউই আমাদের সাথে কোনো কথা বলেনি। আমাদের যদি তারা এসে বলতো এখানে ক্যান্সার হাসপাতাল হবে, তাহলে আমরা শ্রমিকরা চিন্তা ভাবনা করে জায়গা ছেড়ে দিয়ে চলে যেতাম। কিন্তু ওনারা কোনো কিছুই না করে আমাদের দরজাগুলোতে ক্রস দাগ দিয়ে গেছে। আমারা ওনাদের ট্রাস্ট চালিয়েছি কাজ- কর্ম করেছি এবং আমাদের বাপ-দাদারা তাই করেছে। আমরা কোনো কালে কাজ বন্ধ রাখি নাই। অথচ আমাদের যে দূর্ভোগ, আমাদের আর্তনাদ দেখার মত কেউ নাই। আমাদের দুঃখগুলো কেউই দেখতেছে না। আমরা গরীব মানুষ তার ট্রাস্টে সারাজীবন থেকেছি যার জন্যে আমাদের বাবা-মা কিছু করে রেখে যায়নি। আমরা এইভাবে চাচ্ছি না ওনার এখানে কাজ করার আঙ্গিকে চাচ্ছি আমাদেরকে একটু পুনর্বাসনের ব্যবস্থা করুক। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে আকুল আবেদন উনি যেন আমাদের বিষয়গুলো দেখে।

নিউজটি শেয়ার করুন...

আপনার মন্তব্য প্রদান করুন...


© All rights reserved © 2020 bdnewseye.com
Developed BY M HOST BD