শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ০৫:৪৩ অপরাহ্ন

বাজেটে শ্রমিকদের বিশেষ বরাদ্দের দাবিতে মানববন্ধন

নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সামনে বাজেট ২০২১-২২ সংশোধন করে বিশেষ বরাদ্দের দাবিতে মানববন্ধন করেছে নারায়ণগঞ্জ জেলা শ্রমিক কর্মচারী সংগ্রাম পরিষদ।

শ্রমিকদের আর্মিরেটে রেশন, বিনামূল্যে চিকিৎসা ও স্বল্পমূল্যে আবাসন এবং কর্মহীনদের জন্য খাদ্য ও নগদ সহায়তার জন্য প্রস্তাবিত বাজেট ২০২১-২২ সংশোধন করে বিশেষ বরাদ্দের দাবিতে মানববন্ধন করেছে নারায়ণগঞ্জ জেলা শ্রমিক কর্মচারী সংগ্রাম পরিষদ। মঙ্গলবার (১৫ জুন) সকালে নারায়ণগঞ্জ প্রেস ক্লাবের সামনে মানববন্ধনটি অনুষ্ঠিত হয়।
মানবন্ধনে জেলা শ্রমিক কর্মচারী সংগ্রাম পরিষদের সমন্বয়ক হাফিজুল ইসলামের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন, জেলা ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্রের সাধারণ সম্পাদক বিমল কান্তি দাস, জেলা সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্টের সাধারণ সম্পাদক সেলিম মাহমুদ, বিপ্লবী শ্রমিক সংহতি কেন্দ্রীয় কমিটির সাধারণ সম্পাদক আবু হাসান টিপু, জেলা শ্রমিক ফেডারেশনের যুগ্ম আহ্বায়ক এইচ রবিউল চৌধুরী প্রমুখ।
মানববন্ধনে বক্তরা বলেন, গত ৩ জুন ২০২১, জাতীয় সংসদে ৬ লাখ ৩ হাজার ৬৮১ কোটি টাকার বিশাল বাজেট উপস্থাপন করা হয়েছে। ৭.২ প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। কিন্তু করোনার ক্ষতি মোকাবিলায় সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্ত শ্রমজীবী মানুষের জন্য এই বাজেটে কিছু নেই। করোনার প্রথম ঢেউয়ে দেশে নতুন আড়াই কোটি লোক দরিদ্র হয়েছে। এরা সবাই শ্রমজীবী মানুষ। দ্বিতীয় ঢেউ এ সংখ্যা আরও বৃদ্ধি ঘটাবে। প্রত্যাশা ছিল শ্রমিকদের দীর্ঘ দিনের চাওয়া রেশন, আবাসন, বিনামূল্যে চিকিৎসা এটা করোনা মোকাবিলার এবারের বাজেটে অন্তত আসবে। কিন্তু বাজেটে মালিক ব্যাবসায়ীদের জন্য অনেক কর রেয়াত দেয়া হলেও ভ্যাটের আওতা বাড়ানোর ফলে সাধারণ মানুষের পকেট কাটার ব্যবস্থা হয়েছে। এর ওপর আজকে গার্মেন্টসসহ বিভিন্ন ফ্যাক্টরিতে নানা অজুহাতে শ্রমিক ছাঁটাই চলছে। শ্রমিকদের প্রাপ্য পাওনা থেকে বঞ্চিত করা হচ্ছে। ঢাকা ইপিজেড এ বকেয়া পাওনার দাবিতে আন্দোলন করায় পুলিশী হামলায় নিহত হয়েছে শ্রমিক জেসমিন। আদমজী ইপিজেড-এ বন্ধ কুনতং অ্যাপারেলস লিঃ এর শ্রমিকরা বকেয়া আইনগত প্রাপ্য পাওনা চাইতে গেলে শ্রমিকদের পুলিশ লাঠিপেটা করে। যেখান অভুক্ত শ্রমিকরা টাকা পাবে কিন্তু মালিক দিচ্ছে না সেখানে মালিকের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নিয়ে শ্রমিকদের দমন পীড়ন চালানো কোনভাবেই গ্রহনযোগ্য হতে পারে না। শ্রমিকের উপর হামলাকারী পুলিশের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে হবে।
বক্তারা আরও বলেন, করোনায় বেকারের সংখ্যা বৃদ্ধি পেয়েছে। ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে অধিকাংশ মানুষ। করোনাকালের জীবনযাপন প্রক্রিয়া এবং নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যের মূল্য বৃদ্ধির কারণে শ্রমিকদের প্রকৃত মজুরি কমপক্ষে এক-তৃতীয়াংশ কমে গেছে। কিন্তু তাদের খাদ্য বা নগদ সহায়তার জন্য কোন প্রণোদনা বাজেটে নেই। তাদের এখন বাজেট অধিবেশন চলছে। শ্রমিকদের সুরক্ষা দিতে প্রস্তাবিত বাজেট সংশোধন করে শ্রমিকদের আর্মি রেটে রেশন, স্বলমূল্যে আবাসন, বিনা মূল্যে চিকিৎসা এবং কর্মহীন ক্ষতিগ্রস্থ শ্রমিকের জন্য খাদ্য ও নগদ সহায়তার জন্য বিশেষ বরাদ্দের দাবি করছি। নেতৃবৃন্দ শ্রমিক ছাঁটাই বন্ধ ও শ্রমিকের সকল প্রাপ্য পাওনা অবিলম্বে পরিশোধের দাবি জানাই।

নিউজটি শেয়ার করুন...

আপনার মন্তব্য প্রদান করুন...


© All rights reserved © 2020 bdnewseye.com
Developed BY M HOST BD