মঙ্গলবার, ২৭ জুলাই ২০২১, ০৯:০৬ পূর্বাহ্ন

কোভিড-১৯ সচেতনতামূলক কার্যক্রমের উদ্বোধন

সদর উপজেলা কার্যালয় চত্বরে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে কর্মসূচির উদ্বোধন করেন জেলা করোনা ফোকাল পার্সন ও উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃপঃ কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম।

জাহাঙ্গীর হোসেনঃ স্বাস্থ্য, জনসংখ্যা ও পুষ্টি সেক্টর কর্মসূচির আওতায় নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলা কার্যালয় চত্বরে কোভিড-১৯ সচেতনতামূলক কার্যক্রমের উদ্বোধন করা হয়।
রবিবার (১৩ জুন) সকালে সদর উপজেলা কার্যালয় চত্বরে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে কর্মসূচির উদ্বোধন করেন জেলা করোনা ফোকাল পার্সন ও উপজেলা স্বাস্থ্য ও পঃপঃ কর্মকর্তা ডা. মোহাম্মদ জাহিদুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা তথ্য কর্মকর্তা মোঃ সিরাজ-উদ-দৌলা।
কোভিড-১৯ ভাইরাসের কারণে পুরো বিশ্ব আজ বিপর্যস্ত। স্বাস্থ্য, জনসংখ্যা ও পুষ্টি সেক্টর কর্মসূচির (এইচপিএনএসপি) আওতায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তরাধীন স্বাস্থ্যশিক্ষা ব্যুরো’র লাইফষ্টাইল, হেলথ এন্ড প্রমোশন কার্যক্রমের আওতায় স্বাস্থ্যশিক্ষা সেবা প্যাকেজ দেশব্যাপী করোনা মহামারীর বিষয়ে জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়েছে। এরই অংশ হিসাবে জনসচেতনতামূলক লোকগান, নাটিকা এবং স্বাস্থ্যবিধিসহ বিভিন্ন বিষয়ে প্রদর্শনী ভিত্তিক প্রচারণা কার্যক্রম দেশব্যাপী পরিচালিত হবে। দেশের সকল পর্যায়ে সাধারণ মানুষের এই করোনা মহামারীর সংক্রমণ থেকে নিজের সুরক্ষাসহ পরিবার, স্বজন তথা সকলের জীবন রক্ষার্থে স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার কোন বিকল্প নাই।
২০২০ সালে বাংলাদেশে প্রথম করোনা রোগী সনাক্ত হওয়ার পর থেকে বর্তমান সরকার দেশের মানুষকে এই মহামারির সংক্রান্ত থেকে রক্ষার্থে স্বাস্থ্য সেবার পাশাপাশি স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য লকডাউন ঘোষণাসহ বিভিন্ন সচেতনতামূলক পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। যার ফলে বিশ্বের অন্যান্য দেশের তুলনায় বাংলাদেশের সার্বিক করোনা পরিস্থিতি অনেকটা স্থিতিশীল রয়েছে।
এই মহামারি প্রতিরোধে মাস্ক পরা, কিছুক্ষণ পর পর সাবান দিয়ে হাত ধোয়া, ভীড় এড়িয়ে চলা, ন্যুনতম তিন ফুট সামাজিক দুরত্ব বজায় রাখা এবং করোমা শনাক্ত রোগীদের কোয়ারান্টাইনসহ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলার জন্য স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয় জনসচেতনতামূলক নানাবিধ কার্যক্রম পরিচালনা করছে। তারই অংশ হিসাবে “মানতে হবে স্বাস্থ্যবিধির উপদেশ, তবেই করোনামুক্ত হবে বাংলাদেশ” এই প্রতিপাদ্য নিয়ে দেশের ৬৪ জেলার ১২৮টি উপজেলার সাধারণ মানুষকে সচেতন করার লক্ষে লোকগান, নাটিকা, বিজ্ঞাপন ও ক্যারাভান প্রদর্শনীসহ প্রচারণামূলক কার্যক্রম হাতে নেয়া হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন...

আপনার মন্তব্য প্রদান করুন...


© All rights reserved © 2020 bdnewseye.com
Developed BY M HOST BD